«

»

ফেব্রু. ২৪

তবলীগ জামায়াত, একজন মাওলানা নুর উদ্দীন আর উর্দু প্রসঙ্গে

দীর্ঘ প্রায় দুই বছর পর টরন্টোর মারকাজে গিয়েছিলাম গতকাল – ৩.৫ মিলিয়ন ডলার ব্যয়ে ক্রয় করা বিরাট এক স্থাপনা এখন নির্মানাধীন – নির্মানকাজ শেষ হলে ৫ থেকে হাজার মানুষ এক সাথে নামাজ পড়তে পারবে টরন্টোর বার্চমাউন্ড-এগলিংটনের কাছে অবস্থিত এই মারকাজ। মুলত তাবলিগ জামায়াতের ইসতেমাসহ নানান কর্মকান্ডের জন্যে একটা উপযুক্ত জায়গা বটে। প্রতি শুক্রবার ইশার পর সেখানে বয়ান এবং রাতযাপন হয়। এর আগে কয়েকবার গিয়েছি – এরপর অনেকদিন যাইনি – এর মুল কারন বয়ানের বিষয়বস্তু বিশেষ করে কোরানের আয়াতের বৈজ্ঞানিক বিষয়গুলো দূর্বল ব্যাখ্যা আর উদ্দুর অতি ব্যবহার। আগ্রহ নিয়ে বয়ান শুনার জন্যে অপেক্ষার পর যখন উর্দ্দুতে বয়ান শুরু হয় তখন আসলে শুনার আগ্রহ হারাই – কারন উর্দ্দু কম বুঝি – তা ছাড়া হয়তো উর্দ্দুর প্রতি একটা বিবৃষ্ঞা্ ওআছে। এর উপরে যখন একজন আলেম কোরানের বিজ্ঞান সংশ্লিষ্ট আয়াতগুলোর কাল্পিক ব্যাখ্যা দেন – তখন খারাপ লাহে বটে। 

যাই হোক – বলা দরকার টরন্টোর তবলিগ জামায়াতের ভাইদের সাথে আমার ব্যক্তিগত একটা সুসম্পর্ক আছে – কারন উনারা প্রকৃত অর্থের সজ্জন মানুষ আর সবচেয়ে বড় কথা উনারা দ্বীনের পথে নিজেদের ব্যস্থ রাখেন – যদিও তবলীগের সকল বিষয়ের সাথে এক মত হতে পারি না – তারপরও উনাদের শ্রদ্ধা করি বলেই হয়তো যোগাযোগ রাখি। উনারা আমাদের মাসাল্লায় আসেন – গাসত করেন – বয়ান দেন। এইক্ষেত্রে  অবশ্য বিল্ডিং এর লোকজনের যথেষ্ট আপত্তি থাকলেও আমি তাদের আসা এবং কর্মকান্ডকে যথেষ্ট সমর্থন দিয়ে তাদের আগমনকে সহজ করে রেখেছি। 

উনারা প্রায়ই অনুরোধ করেন শুক্রবারের বয়ানের জন্যে মারকাযে যেতে – উনাদের পরিষ্কার বলে রেখেছিলাম – যেদিন মাওলানা নুর উদ্দীন বয়ান দেবেন – সেইদিন যাবো। গতকাল উনারা খবর পেয়েছিলেন যে মাওলানা নুরুদ্দীন বয়ান দেবেন – সেই সুত্রে আবার যাওয়া। চমৎকার এবং শুদ্ধ ইংরেজিতে সবলীল মাওলানা সব সময় বয়ানে কোরান আর হাদিসের রেফারেন্স দেন বলেই উনাকে পছন্দ করি। বাহুল্য বর্জিত সুষ্পষ্ট ভাষায় তবলিগ জামায়াতের কর্মকান্ড আর তার সাম্প্রতিক অবস্থা নিয়ে বললেন উনি – যা আমার মনের দীর্ঘদিনের প্রশ্নের অনেক উত্তর পেলাম বটে। উনার সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য কথা ছিলো – তবলীগের কর্মকান্ড প্রতিনিয়ত আপগ্রেড করা হচ্ছে এবং যারা পাঁচ বছর আগেও চিল্লায় গিয়ে কিছু শিখে এসেছেন – তাদের আবারো আপগ্রেট করা দরকার। এই বিষয়টা প্রায়শই তবলিগ জামায়াতের লোকজনকে বলি – হিকমার প্রয়োগ ছাড়া এলমের কার্যকারীতা নিয়ে প্রশ্ন থাকে। এলমে অনেকের থাকে – হিকমার অভাবে তা প্রয়োগ করতে ব্যর্থ হলে হিতে বিপরীত হতে পারে। যাই হোক – তবলীগ জামায়াত নিয়ে কোন দিন ভিন্ন জায়গায় কথা বলবো। 

একটা ঘটনা বলা দরকার – গত বছর টরন্টোর এক মসজিদের জুমা পড়তে গিয়েছিলাম – সাধারনত সেই মসজিদগুলোতে জুমা পড়তে যাই না – কারন এরা উর্দ্দুতে বয়ান দেয় আর খুতবা দেয় আরবীতে – যার দুইটাতেই আমি দূর্বল – তাই আমার জন্যে যে মসজিদে ইংরেজীতে খুতবা এবং বয়ান হয় সেইটাই বেশী লোভনীয়। যাই হোক – সময় স্বল্পতার জন্যে সেই মসজিদের গেলাম এবং কয়েকবার উর্দ্দু বয়ানে বাংলাদেশ শব্দটা শুনলেও কিছুই বুঝলাম না। ফিরে আসার পথে গিন্নীতে জিজ্ঞাসা করলে বললো – বাংলাদেশের ইসলামের অবস্থা খুবই খারাপ – এমন কি রাশিয়া চেয়েও খারাপ – সেখানে আজান পর্যন্ত শুনা যায় না – তাই বাংলাদেশে তবলীগ করা জরুরী। স্বভাবতই কিছুটা মনক্ষুন্ন হয়েছিলাম। দীর্ঘদিন পর গতকাল মাওলানা নুরুদ্দীনের মুখে বাংলাদেশের প্রশংসা শুনে অবাক হলাম। উনি বাংলাদেশের সরকার, জনগন এবং মুসল্লীদের ব্যাপক প্রশংসা করলেন এবং বাংলাদেশের জন্যে দোয়াই শুধু না – টংগীর ইসতেমার জন্যে সবাইকে দাওয়াত দিলেন – বললেন টংগী এখন বিশ্বের মুসলিমদের একটা মিলনমেলা – এইটা শুধু বাংলাদেশের নয়। বিশেষ করে বাংলাদেশ সরকারের প্রশংসা শুনে কিছুটাতো অবাকই হয়েছি – কারন জামায়াত-শিবিবের বদৌলতে বহিঃবিশ্বের আলেমদের মাঝে বাংলাদেশে সরকার তো ইসলাম বিরোধী আর আলেম হত্যাকারী হিসাবেই চিহ্নিত শুনে এসেছি। গত রিজ সন্মেলনে তারেক রামাদান বাংলাদেশ সরকারের কঠোর সমালোচনা করেছেন এবং আলেম হত্যার জন্যে দায়ী করেছিলেন – এমনকি বাইতুল আমান (ডেনফোর্ত) মসজিদের এক খতিবকেও একদিন খুতবায় বাংলাদেশ সরকারের তীব্র সমালোচনা করতে শুনেছি – এই নিয়ে সুন্নাতুল জুমাআ (বার্চমাউন্ট) মসজিদের জুমা নামাজের সময়ও গন্ডগোল হয়েছে। 

বেশ ভাল লেগেছে মাওলানা নুরুদ্দীনের বয়ান – কারন তবলিগের চিরাচিত পদ্ধতির সংস্করের বিষয়ে উনার বাস্তব সন্মত কথাগুলো পরিবর্তণশীল বিশ্ব পরিস্থিতির সাথে খাপ খায় – বিশেষ করে উনার ইংরেজীতে সাবলীলতাও তবলিগের ম্যাসেজকে সুষ্পষ্ট করবে। 

(২) 

দ্বিতীয় যে বিষয়ে কথা বলা চেষ্টা করবো তা হলো তবলিগ জামায়াতের ভৌগলিক সীমাবদ্ধতা। গতকালের বয়ানেও উপন্থিত ৫ থেকে ৬ শত মানুষের প্রায় সবাই উপমহাদেশের থেকে ফাস্ট জেনারেশের অভিবাসীই দেখলাম। তারমানে টরন্টোর মতো মাল্টি কালচারাল একটা শহরেও তবলিগ জামায়াত তাদের ট্রেডিশনাল  অনুসারীর বাইরে খুবই সামান্য বের হতে পেরেছে। এর কারন কি তা নিশ্চয়ই তবলীগ জামায়াতের মুরব্বীগন অনুসন্ধান করছেন। এই ক্ষেত্রে আমার ব্যক্তিগত পর্যবেক্ষন হলো – তবলীগ জামায়াতের ভাষাগত সীমাবন্ধতা এই অবস্থার জন্যে দায়ী। তবলীগ জামায়াত মুলত উর্দ্দূ ভিত্তিক একটা সংগঠন – যতটুকু দেখেছি উনারা আরবীর চেয়েও উর্দ্দু বেশী ব্যবহার করেন। এতে কিছু মানুষ সাচ্ছন্ধ্য বোধ করলেও অধিকাংশ মানুষের কাছে বোধগম্যহীনতার বিষয়টা থেকেই যায়। বাংলাদেশের ইসতেমায়ও শুনলাম উর্দ্দুতে বয়ান হচ্ছে। এখানে বলে রাখা দরকার – বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষ অন্ধ অনুসারী – তাদের কাছে যা উর্দ্দু – তাই আরবী – এরা শুধুমাত্র বাহ্যিক ভাবে ইমাম, মাওলানাদের অনুকরন করে – সেই জন্যে ইসলামের প্রকৃতরূপ সেখানে দেখা কষ্টকর – না হলে মৃতব্যক্তির সামনে বসে বিবাহ, তালাক বা সম্পত্তি বন্টনের নির্দেশনাবলী সন্মিলিত আয়াতগুলো পড়া হতো না। এই ভাষাগত সীমাবন্ধতা অতিক্রম করে অনেকেই তবলিগের সাথে লেগে থাকেন – অনেকেই (বিশেষ করে বাংলাভাষীগন) সগর্বে উর্দ্দু ভাষায় তাদের দক্ষতা নিয়ে বিচরন করেন – কিন্তু উপমহাদেশের মানুষের বাইরের এর আবেদন অনেক কমে যায়। 

(৩) 

ইসলাম সার্বজনীন জীবন বিধান – বিশ্বের সকল ভাষা, বর্ণ আর সংস্কৃতির মানুষের জন্যে ইসলাম। কিন্তু ভিন্ন ভিন্ন ভাষাভাষীর মাঝে পারষ্পারিক যোগাযোগের জন্যে অন্তত কিছু ভাষা থাকে যা বিশ্ব মুসলিম সমাজকে একটা উম্মায় পরিনত করবে। এই যাবত কাল পর্যন্ত আরবীর পাশাপাশি ফারসী আর উর্দ্দু সেই যোগাযোগের কাজটা করছিলো। তাই উপমহাদেশের গড়ে উঠা তবলিগী আন্দোলনের বিস্তার সেখানে বেশ ভাল ভাবেই হয়েছে – কিন্তু যখন এই আন্দোলন উপমহাদেশের বাইরে এসেছে তখন তা আর এগুতে পারছে না – তাই তবলিগের মুল ভাষা এখন আরবীর পাশাপাশি ইংরেজীকে যত দ্রুত গ্রহন করা যাবে ততই মংগল – কারন আমরা পছন্দ করি আর না না করি – আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে ইসলামের ভাষা হবে আরবীর পরই ইংরেজী – সেখানে আঞ্চলিক ভাষাগুলো এড়িয়ে ইংরেজীকে প্রাধান্য দিয়ে দাওয়াতির কাজ করলে ভাল হবে বলেই মনে করছি। উপমহাদেশের প্রখ্যাত দা'ঈ জাকির নায়েকের সাফল্যের একটা বড় কারনও ইংরেজীর ব্যবহার।

লেখা শেষ করার আগে একটা কথা বলা জরুরী – আমার ইসলাম চর্চার পিছনে তবলীগ জামায়াতের একটা অবদান স্বীকার করা দরকার – ইন্টারনেটে কোরানের বাংলা অনুবাদের এমপি৩ খুঁজতে গিয়ে তবলীগ জামায়াতের ওয়েব সাইড থেকে ডাউনলোড করি ২০০৭ সালে – সেই থেকে এই এমপি৩ আমার নিত্য সংগী – বহু মানুষকে কপি করে দিয়েছি আর কোরান শুনে অনেক মানুষ গভীর ভাবে ইসলামের ভিতরে ঢুকেছে। অবশ্যই একটা ধন্যবাদ প্রাপ্য সেই ওয়েবসাইটটির- http://www.banglakitab.com/HighQualityQuranInBangla.htm

১১ মন্তব্য

এক লাফে মন্তব্যের ঘরে

  1. এনায়েত

    চমৎকার।

    1. ১.১
      আবু সাঈদ জিয়াউদ্দিন

      ধন্যবাদ। 

  2. মাহফুজ

    আপনার অভিজ্ঞতা ও অনুভুতি প্রকাশের জন্য ধন্যবাদ।

    ইসলামের দাওয়াতি কর্মে তাবলিগ জামাতের অবদান স্বীকার না করলে অবিচারই করা হবে। তবে তারা যদি পবিত্র কোরআনের শিক্ষা অর্জন ও জ্ঞানানুশীলনে তৎপর হতেন এবং নিচের আয়াতের নির্দেশনা সঠিকভাবে মেনে চলতেন তাহলে আরও ভাল হত-

    (৩:১০৪) আর তোমাদের মধ্যে এমন একটা দল থাকা উচিত যারা আহবান জানাবে সৎকর্মের প্রতি, নির্দেশ দেবে ভাল কাজের এবং বারণ/ নিষিদ্ধ করবে অন্যায় কাজ থেকে, আর তারাই হলো সফলকাম। 

    (০৯:১২২) আর বিশ্বাসীদের সবাই মিলে একত্রে বাহিরে (অভিযানে) বের হওয়া উচিত নয়; তাদের প্রত্যেক দলের মধ্য থেকে একটি অংশ বহির্গত হোক এবং দ্বীন (ধর্ম, অভ্যাস, জীবনজাপনপ্রণালী) সম্পর্কে জ্ঞানানুশীলন করুক, অতঃপর অভিযান শেষে ফিরে এসে স্বজাতিকে সতর্ক করুক, যেন তারা আত্মরক্ষা করতে পারে।

  3. মোহাম্মদ রানা

    ভাল লাগল গঠন মুলক লেখার জন্য,আনেকে তাব্লীগের অন্ধ অনুসরন আর দুরনাম করে।দুই দলেরি এ ধরনের লেখা পড়া দরকার।জাযাক_আল্লহ

  4. আবু সাইফ

    আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহ……

    খুব সুন্দর গঠনসূলক পর্যালোচনা, জাযাকাল্লাহ…..

    তাবলীগ জামায়াতের সংগঠন নিঃসন্দেহে উম্মাহর জন্য এক বিরাট নিয়ামত ! এখন প্রয়োজন এটাকে প্রতিনিয়তঃ যুগোপযোগী করতে থাকা এবং অসত্য ও ভিত্তিহীন বর্ণনাগুলো পরিত্যাগ করা !!

    আল্লাহতায়ালা এ নিয়ামতটিকে উম্মাহর কল্যানে নির্ভুল উপকরণসহ যথাযথভাবে কাজ করার তাওফীক দিন, আমীন !

  5. সরকার সানজিদ আদভান

    তাবলীগ জামাত সত্যিই খুব ভালো কাজ করছে।কিন্তু তাদেরও কিছু ভুল ভ্রান্তি আছে যা ঠিক করা বাঞ্জনীয়।

    আপনার লেখার একটি অংশ বিশেষভাবে উল্লেখ না করলেই নয়

    বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষ অন্ধ অনুসারী – তাদের কাছে যা উর্দ্দু – তাই আরবী – এরা শুধুমাত্র বাহ্যিক ভাবে ইমাম, মাওলানাদের অনুকরন করে – সেই জন্যে ইসলামের প্রকৃতরূপ সেখানে দেখা কষ্টকর

  6. colorectal surgeon in bangladesh

    আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহ……

    তাবলীগ জামায়াতের সংগঠন টি নিঃসন্দেহে আমাদের সবার জন্য এক বিরাট নিয়ামত………… বিষেশ করে তাদের help মূলক কাজ গুলো…  ‍<a href="http://pilescurebd.com"&gt; colorectal surgeon in bangladesh </a>

  7. শামিম

    কোরান শরিফের একটি সহজ সরল বাংলা অনুবাদের অডিও লিঙ্ক

    https://drive.google.com/folderview?id=0B8Vey8LtTPsPfmx3bHFLbV9mbWFXdU9tWURFdk9Pcm1pZUFBRHQzRy11VnJPbnBRZ3BDbW8&usp=sharing

  8. bellal hossain

    এতদিনে আপনার দাওয়াত ও তবলীগ ভাল লেগেছে কারন, মাওলানা নুরুদ্দীন আওয়ামী সরকারের প্রশংসা করেছে !

    1. ৮.১
      Sami

      ভাই আপনি ঠিকই ধরেছেন, জিয়া ভাই একটু আওয়ামী বন্দনা শুনার জন্য চাতক পাখির মত  আকাশের দিকে চেয়ে ছিলেন/ ইউরেকা! ইউরেকা! ইউরেকা!

  9. Maisha Maadai

    অনেক অনেক ধন্যবাদ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।